অনলাইনে ভারত-বিরোধী প্রোপাগান্ডায় সামিল চীন

অনলাইনে ভারত-বিরোধী প্রোপাগান্ডায় সামিল চীন

টিম যুগান্তর: চীনের সামাজিক মাধ্যমে কতগুলি ভিডিও এবং ছবি প্রকাশিত হয়েছে যাতে দেখা যাচ্ছে যে ১৫ই জুন গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় সৈনিকদের সাথে সংঘর্ষের জেরে চীনা সৈনিকদের চারজনের মৃত্যু হয়েছে এবং একজন গুরুতর আহত হয়েছে। ঘটনার তিনদিন পর এগুলি প্রকাশিত হয়।
এই রক্তাক্ত সংঘর্ষের ভিডিওটি প্রথম প্রকাশিত হয় শুক্রবারে বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে যেগুলি হল ওয়েইবো(টুইটারের মতো), উই চ্যাট এবং ডোউইন(টিকটকের আঞ্চলিক সংস্করণ)।
চীনের কমিউনিস্ট পার্টির সরকার দ্বারা কঠোরভাবে পরিচালিত অনলাইন জগৎ যেখানে তাঁদের মতাদর্শ বিরোধী কোনও পোস্ট করা যায় না, সেখানে ভারতীয় সৈনিকদের চিত্রিত করা হয় আক্রমণকারী হিসেবে।
রবিবার মধ্যরাতে দেওয়া ভারত-চীনের যুক্ত বিবৃতিতে জানানো হয়েছে যে এই সংঘর্ষ থামানোর জন্য সবরকম প্রচেষ্টা চলছে।
চীনের ভারতীয় দূতাবাসের ওয়েইবো অ্যাকাউন্টে বিভিন্ন আপত্তিকর ও আক্রমণাত্মক বার্তা পাওয়া যায় যা যথেষ্ট উদ্বিগ্নতা বাড়ায়।
রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যম, ওয়েবসাইট ও ব্লগাররা চীন ও তার সশস্ত্র বাহিনীর প্রশংসার স্তুতি গাইছে, তাদের মতে চীন শক্তিশালী হওয়া সত্ত্বেও ভারতীয় সেনার প্রতি সংযম প্রদর্শন করেছে। এর মধ্যে যে হ্যাশট্যাগটি সবচেয়ে বেশি সন্ধান করা হয়েছে তা হল “তাদের মৃত্যু আমার জন্য হয়েছিল”, সোমবারের রাষ্ট্রীয় চীনের দৈনিক পত্রিকা থেকে জানা গেছে।
ইউয়েডিংচেংশু নামক এক ওয়েইবো ব্যবহারকারী লিখেছেন, “সন্ধ্যা অবতীর্ণ হয়েছে। আমার হাতে এক বাটি ভাত ও অন্য হাতে নরম পানীয়। বুঝতে পারি না শক্তিশালী সৈনিকদের মৃত্যুর কারণ। মাঝরাতে ঘুম ভেঙে যায়, মনে হয়: আমার জন্যই ওদের মৃত্যু হল।” এই পোস্টটি ব্যপক ভাবে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে বলে জানা যায় চীনের দৈনিক খবর অনুযায়ী।
সৈনিকদের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার ভিডিও এবং এদের একজনের জীবিত অবস্থার ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে যেখানে দেখা যাচ্ছে তিনি একটা অর্ধেক খোসা ছাড়ানো কমলালেবু হাতে হাসছেন।
অন্য কোথাও চীন কর্তৃপক্ষ অন্ততপক্ষে এরকম তিনজনকে পুলিশি হেফাজতে নিতে বলেছেন যারা চীনা সৈনিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যে অপবাদ ছড়িয়েছে।
চীন এর সামরিক ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে, “সাইবারস্পেস আইনশূন্য না। আমাদের দেশের বীরনায়ক সেনাদের যারা ভিত্তিহীন ভাবে মিথ্যে অপবাদ দিয়েছে তাদের কাউকে রেয়াত করা হবেনা”। সেখানে আরও বলা হয়, “সাম্প্রতিক বছরে যারা আমাদের বীরনায়ক সেনা ও শহীদদের অপবাদ দিয়েছে বা অপমান করেছে, তাদের প্রত্যেকের শাস্তি হয়েছে। এই ব্যাপারে চীনের আইন কোনও রকম গাফিলতি বরদাস্ত করে না।”

শেয়ার করুন

0Shares
0
অর্থনীতি, রাজনীতি এবং সাম্প্রতিক