নতুন করে বাড়ছে কোভিড সংক্রমণ

নতুন করে বাড়ছে কোভিড সংক্রমণ

টিম যুগান্তর: প্রতিদিন প্রায় ১২,০০০ কোভিড সংক্রমণের পর বুধবার এর চেয়ে অধিক, গত ২৪ ঘন্টায় ১৪,৯৮৯ টি সংক্রমণের খবর পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার পর্যন্ত দৈনিক সংক্রমণের হিসেব ছিল ১২,২৮৬। সংক্রমণ মুক্ত হয়েছিল ১০,৮১২০৪৪ মানুষ এবং ২৪ ঘন্টায় ১৩,১২৩ মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছে। কিন্তু হঠাৎ বুধবারে সংক্রমণের মাত্রা বেড়ে যায় দৈনিক সুস্থতার হারের থেকে এবং সক্রিয় সংক্রামিতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ১,৭০,১২৬। সংক্রমণের এই হঠাৎ বৃদ্ধি ইতিমধ্যেই বেশ চিন্তা বাড়িয়েছে।
মঙ্গলবার ভারতের সক্রিয় সংক্রমণের কেসের পরিমাণ ছিল প্রায় ১.৬৮ লাখ। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে মহারাষ্ট্র, কেরালা, পাঞ্জাব, তামিলনাড়ু, গুজরাট এগিয়ে রয়েছে।
মহারাষ্ট্র, কেরালা, গোয়া, চন্ডীগড়, পাঞ্জাব এবং গুজরাট সহ ছয়টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির গড় সংক্রমণের তুলনায় সাপ্তাহিক সুস্থতার হার বেশি। মহারাষ্ট্র সাপ্তাহিক সুস্থতার নিরিখে ১০.২ শতাংশ হারে বাকি রাজ্যগুলির মধ্যে শীর্ষে রয়েছে, মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে।
মঙ্গলবার মহারাষ্ট্রে ৭,৮৬৩ টি নতুন সংক্রমণের কেস অন্তর্ভুক্ত করা হয় যার ফলে সেই রাজ্যের সংক্রমণের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১,৬৯,৩৩০।
মঙ্গলবার কেরালায় নতুন ২,৯৩৮ টি সংক্রমণের খবর ও ১৬ টি মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।
পাঞ্জাব, তামিলনাড়ু ও গুজরাট যথাক্রমে ৭৩০, ৪৬২, ৪৫৪ টি নতুন সংক্রমণের খবর পাওয়া গেছে।
সংক্রমণের এই হঠাৎ বৃদ্ধির কারণ নির্ধারণের জন্য এবং দৈনিক সংক্রমণ হঠাৎ বৃদ্ধির জন্য কেন্দ্র কয়েকটি রাজ্যে উচ্চ-স্তরের বহু-শাখা-প্রশাখা দলকে নিয়োগ করেছে।
কোভিড সংক্রমণের মাত্রা জানুয়ারিতে কিছুটা স্থিতিশীল হওয়ার পরে দৈনিক সংক্রমণের হঠাৎ বৃদ্ধির কারণ হিসেবে জনসাধারণের ঢিলে মনোভাব ও নির্ধারিত নিয়ম পালনে অনিচ্ছাকেই দায়ী করা হচ্ছে।
বেশ কয়েকটি রাজ্য সংক্রমণ বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ করতে স্থানীয় কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। টিকাকরণের গতি ও বাড়ানো হয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে এখন ৪৫-৫৯ বছর বয়স্ক প্রবীণ নাগরিকদের টিকাকরণ করা শুরু হয়েছে।
খুব শীঘ্রই ভারত তথা সমগ্র পৃথিবী এই মহামারী থেকে সম্পূর্ণভাবে মুক্তিলাভ করবে বলে আশা করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন

0Shares
0
এখন সাম্প্রতিক